English
শনিবার ০৪ জুলাই ২০২০
...

ইউনুস নির্বাচিত হলেন গাইবান্ধা ৩ আসনে

ইউনুস নির্বাচিত হলেন

ঢাকা, রবিবার, ২৭ জানুয়ারি ২০১৯, রাজনীতি ডেস্কঃ একাদশ জাতীয় সংসদ অধিবেশনের আগ মুহূর্তে আজ ছিল গাইবান্ধা-৩ আসনের সংসদ নির্বাচন। নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠ বিজয়ী ও পুনরায় সরকার পরিচালনায় একক নেতৃত্বদানকারী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শাসন শুরু হবার পর প্রথম অনুষ্ঠিত এ সংসদ নির্বাচন স্বভাবতই ছিল উত্তাপবিহিন। এতে বিশাল ব্যবধানে বিজয়ী হন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ডা. ইউনুস আলী সরকার। জাতীয় পার্টির (জাপা) দিলারা খন্দকার শিল্পী, ন্যাশনাল পিপলস্‌ পার্টির (এনপিপি) মিজানুর রহমান, জাসদের এস এম খাদেমুল ইসলাম, স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু জাফর মো. জাহিদ এবং আওয়ামী লীগের ইউনুস আলী সহ মোট পাঁচ জন প্রার্থী এ নির্বাচনে অংশ নেন। 

গাইবান্ধা-৩ (সাদুল্লাপুর-পলাশবাড়ি) আসনে ইউনুস ১ লাখ ২১ হাজার ১৬৩ ভোট পান এবং জাতীয় পার্টির দিলারা খন্দকার শিল্পী পান  ২৪ হাজার ৩৮৫ ভোট। গত ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের পূর্বে ২০ ডিসেম্বর অসুস্থতাজনিত কারনে মৃত্যুবরন করেন জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এবং... ঐক্যফ্রন্ট সমর্থিত ধানের শীষের প্রার্থী ড. টিআইএম রাব্বী চৌধুরী। তাঁর মৃত্যুর পর এ আসনে বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচন স্থগিত করে এবং পরবর্তীতে ২৩ ডিসেম্বর পুনঃতফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

এই নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্ট, বিএনপি, জামায়াত এই নির্বাচনে অংশ নেয়নি। তবে গাইবান্ধা জেলা বিএনপির সভাপতি মইনুল হাসান সাদিক মনোনয়নপত্র দাখিল করলেও গত ১০ জানুয়ারি প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নেন তিনি। সাদুল্যাপুর ও পলাশবাড়ী এই দুইটি উপজেলার ১৩২টি কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট হয়েছে এবং কোথাও তেমন কোনো সংঘর্ষের সংবাদ পাওয়া যায়নি। 

সর্বশেষ এই নির্বাচনের পর জাতীয় সংসদের ৩০০ আসনের মধ্যে ২৯৯ টি আসনের নির্বাচন সম্পন্ন হোল। আর মাত্র একটি আসন কিশোরগঞ্জ-১ পুনঃনির্বাচন হবে ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯। যে আসনে নির্বাচিত হন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম  কিন্তু শপথ নেবার পূর্বে গত ৩ জানুয়ারি চিকিৎসাধীন অবস্থায় ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে মারা যান এবং এর ফলে আসনটি শূন্য ঘোষিত হয়।




মন্তব্য

মন্তব্য করুন