English
সোমবার ০৬ জুলাই ২০২০
...

প্রতিবন্ধীদের প্রতি ইতিবাচক মনোভাব প্ৰদর্শনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ঢাকা, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বিজয়ের মাসে সামাজিক বৈষম্য দূর করে সমাজ বিনির্মাণে প্রতিবন্ধীদের ব্যাপারে ইতিবাচক মনোভাব প্ৰদর্শনের আহ্বান জানিয়ে বলেন, "প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ব্যাপারে আমাদের নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে হবে।”

আজ তিনি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন কর্তৃক যৌথভাবে আয়োজিত মিরপুরে অবস্থিত জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশনে ২৮তম আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস ও ২১তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস-২০১৯ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন। 


প্রধানমন্ত্রী বলেন, "কানাকে কানা আর খোঁড়াকে খোঁড়া বলো না শৈশব থেকে আমরা এই শিক্ষা পেয়েছি। শিশুদের শৈশব থেকে এই শিক্ষা দিতে হবে যাতে তারা মানবিক হয় এবং যাতে তারা আমাদের সঙ্গে একত্রে চলতে পারে- এটিই সবচেয়ে বড় কথা।" নবনির্মিত জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন কমপ্লেক্স ‘সুবর্ণ ভবন’ উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা।

মৌলিক চাহিদা পূরণের মাধ্যমে বৈষম্যমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠায় তাঁর সরকারের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করে তিনি বলেন, "তার সরকার এমন পদক্ষেপ নিচ্ছে যাতে প্রতিবন্ধীতায় যারা ভুগছেন তারা সমাজের মূলধারার সঙ্গে বসবাস করতে পারেন।" তিনি আরো বলেন, "কেবল আর্থিক সহায়তা প্রদান নয়, বরং এই ফাউন্ডেশন প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদেরকে স্বাস্থ্য সেবা সুবিধা এবং প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে সাহায্য করতে পারে।"  


শেখ হাসিনা প্রতিবন্ধীদের কল্যাণে গৃহীত বিভিন্ন... পদক্ষেপের উল্লেখ করে বলেন, "আওয়ামী লীগ ১৯৯৯ সালে জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করে। পরে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি অধিকার ও সুরক্ষা আইন, ২০১৩; নিউরো ডেভেলপমেন্টাল প্রতিবন্ধী সুরক্ষা ট্রাস্ট আইন, ২০১৩ এবং পুনর্বাসন কাউন্সিল আইন ২০১৮ প্রণয়ন করেছি।"

তিনি আরো বলেন, "আমরা প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদেরকে স্টাইপেন্ড ও বৃত্তি প্রদান করছি। ৮০ কোটি টাকা খরচ করে আমরা প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য শিক্ষা, স্বাস্থ সেবা, প্রশিক্ষণ, খেলা-ধূলা, পুনর্বাসন, গৃহায়ন এবং বিনোদন সহ বিভিন্ন সুবিধা নিয়ে ‘সুবর্ণ ভবন’ নির্মান করেছি। সরকার তাদের জন্য বিভিন্ন ক্রীড়া ও খেলাধূলার ওপর বিশেষ মনোযোগ দিচ্ছে।" 


বঙ্গবন্ধু কন্যা 'জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন'কে একটি পরিদপ্তরে উন্নীত করার দাবি প্রসঙ্গে বলেন, "ফাউন্ডেশনকে একটি পরিদপ্তরে রূপান্তরিত করা সঠিক নয়, ফাউন্ডেশন থাকলে আর্থিক অনুদান আসবে এবং ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে কাজ করার অনেক সুযোগ রয়েছে। এতে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা লাভবান হবে না বরং কিছুসংখ্যক সরকারি কর্মকর্তা লাভবান হবেন।" 

সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ। এতে বক্তব্য রাখেন সমাজকল্যাণমন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জুয়েনা আজিয়া, জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরামের সভাপতি সায়েদুল হক এবং প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের পক্ষে ন্যাশনাল স্পেসালাইজড এডুকেশন সেন্টারের পঞ্চম গ্রেডের শিক্ষার্থী ফেরদৌসী আখতার।  




মন্তব্য

মন্তব্য করুন