English
শনিবার ০৪ জুলাই ২০২০
...

চিরতরে চলে গেলেন সাদেক হোসেন খোকা 

বিএনপি নেতা মরহুম সাদেক হোসেন খোকা

নিউয়র্ক, ৪ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার: একাত্তরের রণাঙ্গনে ঢাকা কাঁপানো মহাবীর গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকা চিরবিদায় নিয়ে চলে গেলেন না ফেরার দেশে। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান, সাবেক মন্ত্রী ও এমপি, অবিভক্ত ঢাকার সর্বশেষ সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকা আজ নিউইয়র্ক সময় ভোর ২:৫০ মিনিটে নিউয়র্কের স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টার হাসপাতালে ৬৭ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি র'জিউন !)। 

সাদেক হোসেন খোকার বড় ছেলে ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন গত ২৯ অক্টোবর নিউ ইয়র্কে আসেন। স্ত্রী ইসমত আরা, বড় ছেলে ইশরাক, ছোট ছেলে ইশরাক, মেয়ে সারিকাসহ পরিবারের অনেকেই তাঁর মৃত্যুশয্যায় উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, সাদেক হোসেন খোকা ক্যান্সারে আক্রান্ত হবার পর ২০১৪ সালের মে মাসে যুক্তরাষ্ট্র আসেন চিকিৎসার জন্য এবং তাঁর সহধর্মিণী ইসমত আরাকে নিয়ে নিউ ইয়র্কেই বসবাস করতেন। একটানা পাঁচ বছরেরও অধিক সময় নিয়মিত চিকিৎসকদের সেবা নেন তিনি। 


গত ১৮ অক্টোবর গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাঁকে স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যানসার সেন্টার হাসপাতালে নেয়া হলে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র আইসিইউ-তে ভর্তি করা হয়। এরপর থেকেই সপ্তাহখানেক ধরে জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে ছিলেন বিএনপির অন্যতম শীর্ষস্থানীয় ও জনপ্রিয় এই নেতা। চিকিৎসকরা তাঁর... বেঁচে থাকার ব্যাপারে আশা ত্যাগ করে দেবার পর প্রবাসে সবার প্রিয়জন এই মানুষটিকে দেখতে গেছেন অসংখ্য গুণগ্রাহী ও পরিচিত সব মানুষেরা। সবার কাছে নিজের জন্য যেমন দোয়া চেয়েছেন তেমনি অন্যদেরকে জন্য ও দোয়া করেছেন।


গত ১৮ অক্টোবরহাসপাতালে ভর্তি হবার পর থেকেই বিএনপি'র অসংখ্য নেতাকর্মীরা সার্বক্ষণিক হাসপাতালে উনার পাশে পালাক্রমে সার্বিক খোঁজখবর নিতেন। বেশ কয়েকদিন ধরেই নিউয়র্কে বসবাসরত প্রবাসীরা উনার স্বাস্থ্যের অবনতিতে চরম উৎকণ্ঠার মধ্যে ছিলেন। গভীর রাতে মৃত্যু সংবাদ পেয়ে বিএনপি সহ সর্বস্তরের প্রবাসীরা হাসপাতালে উপস্থিত হন। গত সপ্তাহে অসুস্হ্য সাদেক হোসেন খোকাকে হাসপাতালে দেখতে যান যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান। তিনি উনার শারীরিক অবস্থা দেখে আবেগ তাড়িত হয়ে যান এবং দেশবাসীকে উনার জন্য দোয়া করতে বলেন। 


আজ বাদ এশা সন্ধ্যা ৭টায় নিউয়র্কের জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে মরহুমের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতৃবৃন্দ।সাদেক হোসেন খোকার পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও মরহুমের মরদেহ দেশে পাঠাতে নিউয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট অফিস ট্রাভেল ডুকুমেন্ট সহ যাবতীয় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার আশ্বাস দিয়েছেন। উনার শেষ ইচ্ছে অনুযায়ী ঢাকার জুরাইনে তাঁর পিতা-মাতার কবরের পাশে দাফন করা হবে। 




মন্তব্য

মন্তব্য করুন