English
১০ জুলাই ২০২০
...

আজ মহান আন্তর্জাতিক মে দিবস

মে দিবস

ঢাকা, ০১ মে ২০২০, শুক্রবারঃ আজ মহান মে দিবস। কর্মক্ষেত্রে বঞ্চনার বিরুদ্ধে শ্রমজীবী মানুষের অধিকার আদায়ের অনন্য সংগ্রামের দিন। শ্রমিক-মালিক ঐক্য গড়ি, সোনার বাংলা গড়ে তুলি” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারা বিশ্বের মত বাংলাদেশেও আজ পালিত হচ্ছে মহান মে দিবস।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে দিবসটির যাবতীয় কর্মসূচি স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। তবে দিবসটির গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরে রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন।

গণমাধ্যমগুলোও বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করেছে এ দিনটি স্মরণে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় প্রতি বছর এ দিনটি স্মরণে বিবিধ অনুষ্ঠানাদি ও কর্মসূচির মাধ্যমে সাড়ম্বড় উৎসবের আয়োজন করে থাকে কিন্ত এবছর এর ব্যতিক্রম ঘটছে, মহাগ্রাসী করোনার থাবায় সব যেন স্তিমিত। 

উল্লেখ্য, ১৮৮৬ সালে আজকের এই দিনে আমেরিকার শিকাগো শহরের হে মার্কেটের শ্রমিকরা দৈনিক ৮ ঘণ্টা কাজের দাবিতে শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ মিছিলে অংশ নেন। কিন্ত শ্রমজীবী মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার সে অপ্রিতিরোধ্য আন্দোলনে​​র মিছিলে পুলিশ  বেপরোয়া গুলি বর্ষণ করে আর এতে নিরীহ ১১ জন শ্রমিক নিহত হন, আহত ও গ্রেফতার হন আরও বহু শ্রমিক। 

এ অনভিপ্রেত অমানবিক ঘটনাকে ভিন্ন... খাতে প্রবাহিত করতে প্রশাসন প্রহসনমূলক এক বিচারের আয়োজন করে এবং প্রকৃত দোষীদের বাঁচাতে গ্রেফতারকৃত নিরপরাধ শ্রমিকদের মধ্যে থেকে ছয়জনকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করে। 

এতে বিক্ষুব্ধ হয়ে পড়ে সমগ্র আমেরিকার শ্রমিকরা এবং তার ঢেউ এস লাগে সারা বিশ্বের সব শ্রমিক তথা শান্তিকামী মানুষদের মধ্যে, গড়ে উঠে আরো দুর্বার গণ-আন্দোলন। আর এরই ফলশ্রুতিতে পরবর্তীতে যুক্তরাষ্ট্রের সরকার মেনে নিতে বাধ্য হয় শ্রমিকদের এ ন্যায়সঙ্গত দাবি। প্রতিষ্ঠা হয়, সারা বিশ্বের তাবৎ শ্রমজীবী মানুষের শ্রমের অধিকার। 

শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান দিবসটি উপলক্ষে এক বার্তায় শ্রমজীবী মেহনতি ভাই বোনদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, "করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। কোনো প্রকার আনুষ্ঠানিকতা থেকে শ্রমিকদের নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি সবার আগে।"

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে শ্রমিক সংগঠনগুলোকে কোনো প্রকার জনসমাগম হয় এমন কোনো কর্মসূচি গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকার আহ্বানও জানান প্রতিমন্ত্রী। তিনি আরও  বলেন, "বৈশ্বিক এ মহামারীর মধ্যে দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক মালিকগণকে প্রয়োজনে কারখানা খোলা রাখতে অবশ্যই কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করতে হবে।"

তিনি আরও  বলেন, "এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট দপ্তর, সংস্থা যেমন- শিল্প পুলিশ, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাথে সমন্বয় করে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। সবাইকে সাথে নিয়ে করোনা ভাইরাসের এ যুদ্ধে সরকার অবশ্যই সফল হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।"




মন্তব্য

মন্তব্য করুন